অধরা তারাবর অস্ত্রধারী সন্ত্রাসী রুবেল বাহিনী

স্টাফ রিপোর্টার: রূপগঞ্জ তারাব দক্ষিণপাড়া এলাকার আতঙ্ক অস্ত্রধারী সন্ত্রাসী শীর্ষ মাদক সম্্রাট ডজন খানের মামলার আসামি রুবেল ভূঁইয়া বাহিনী বেপরোয়া হয়ে উঠেছে। মানসিক প্রতিবন্ধীসহ একই পরিবারের চারজনকে কুপিয়ে আহত করার ঘটনায় মামলা হলেও পুলিশ তাকে গ্রেপ্তার করতে পারেনি। ফলে আতঙ্ক কাটছেনা স্থানীয়দের।

জানা গেছে, পূর্ব শত্রুতার জের ধরে শীর্ষ মাদক সম্্রাট রুবেল বাহিনী গত ৫ ডিসেম্বর সন্ধ্যা ৬ টার দিকে তারাব পৌরসভার দক্ষিণপাড়া এলাকার মৃত শুক্কুর আলীর ছেলে মো: জামাল বাদশার বসত বাড়িতে হামলা চালায়। হামলাকারী সন্ত্রাসীরা অস্ত্রসস্ত্র নিয়ে একজন প্রতিবন্ধীসহ চারজনকে কুপিয়ে গুরুতর জখম করে। এঘটনায় পৌরসভার দক্ষিণপাড়া এলাকার মৃত শুক্কুর আলীর ছেলে জামাল বাদশা বাদী হয়ে একই এলাকার মৃত মাহমুদ আলীর জেলে জাহেদ আলী (৪৪), মৃত তমিজ উদ্দিনের ছেলে রুবেল ভূঁইয়া (৫০), যাত্রামুড়ার নেছার খানের ছেলে রকি খান (৩৫), সিয়াম (২২) পিতা অজ্ঞাত, জাহাঙ্গীরের ছেলে জাহিদুল (২০), বিজয় (১৯) পিতা অজ্ঞাত, হৃদয়া (১৮) পিতা অজ্ঞাত, পূর্ব তারাব সুলতানবাগ এলাকার আবু ছালেকের ছেলে মিলন (৩৫) এর নাম উল্লেখ ও ৮/১০ জনকে অজ্ঞাত আসামি করে থানায় মামলা করেন।

মামলায় বাদীর বাড়ীঘর ভাংচুর, লুটপাট ও নারীদের শ্লীলতাহানির অভিযোগ আনা হয়েছে। পাশাপাশি সন্ত্রাসী রুবেলের বিরুদ্ধে রূপগঞ্জ থানায় দায়ের করা ৪৭(৬)৫, ৫১(১০)১০, ১২(৮)১৬, ৩৩(৭)১৬, ৬৪(৫)১৬, ৩৪(৪)১২, ৩(১২)১৩, ১৭(৯)১৮, ৩৯(১২)১৬ নং মামলা বিচারাধীন রয়েছে বলে উল্লেখ করা হয়েছে। তিন নং আসামি রকি খানের বিরুদ্ধে রূপগঞ্জ থানায় ২(৫)২০, ৫১(৬)১৬, ৬(৬)১৬, ১১(৩)১৮, ১৫(১২)১৫, ১৬(১২)১৫, ১৯(১২)১৫ ও সিদ্ধিরগঞ্জ থানায় ২৭(২) ২১ নং মামলা রয়েছে।

স্থানীয়দের অভিযোগ, অস্ত্রধারী সন্ত্রাসী রুবেল একসময় বিএনপি করতো। বর্তমান সরকার ক্ষমতায় আসার পর মিশে যায় আওয়ামীলীগে। অপর শীর্ষ সন্ত্রাসী রকি খান, আকবর বাদশাকে সাথে নিয়ে বিশাল বাহিনী গড়ে তুলে এলাকায় মাদক ব্যবসা, জুয়ার আসর পরিচালনাসহ বীর দর্পে কায়েম করে ত্রাসের রাজত্ব। কিছুদিন আগে রুবেলকে অস্ত্রসহ গ্রেপ্তার করে র‌্যাব-১১। কিছুদিন জেল হাজত বাস করে জামিনে বের হয়ে রুবেল আরো বেপরোয়া হয়ে উঠে। বিস্ফোরক মামলার আসাসি রকি খানকেও কিছু দিন আগে ডাকাতি মামলায় গ্রেপ্তার করেছিল সিদ্ধিরগঞ্জ থানা পুলিশ। সেও জামিনে বের হয়ে যায়। নৌ-পুলিশের উপর হামলা মারধরের অভিযোগে দায়ের করা মামলায় কিছু দিন আগে আকবর বাদশাকে গ্রেপ্তার করেছিল র‌্যাব-১১। সেও জামিনে বের হয়ে যায়। হত্যা, ডাকাতি, অস্ত্র, বিস্ফোরক, মাদক ও মারামারিসহ একাধিক মামলার আসাসি রুবেল, রকি খান ও আকবর বাদশা গ্রেপ্তার হলেও কয়েকদিন পরই জামিনে বের হয়ে পড়ায় তাদের বিরুদ্ধে ভয়ে কেহ কথা বলতে পারছেনা। তাদের অপকর্মের প্রতিবাদ করলেই নির্যাতনের শিকার হতে হয়। সম্প্রতি একই পরিবারের চার জনকে কুপিয়ে আহত করার ঘটনায় মামলা হলেও এসব সন্ত্রাসীরা গ্রেপ্তার না হওয়ায় এলাকায় চরম ক্ষোভ বিরাজ করছে। তাই তাদেরকে দ্রুত গ্রেপ্তার করার দাবি জানান বাদীসহ এলাকাবাসী।