পরীমণিকে দফায় দফায় রিমান্ড; হাইকোর্টে দুই বিচারকের ক্ষমা প্রার্থনা

অনলাইন ডেস্ক : চিত্রনায়িকা পরীমণিকে দ্বিতীয় ও তৃতীয় দফা রিমান্ড মঞ্জুর করায় হাইকোর্টের কাছে ক্ষমা চেয়েছেন নিম্ন আদালতের দুই বিচারক। দুই বিচারক হলেন, দেবব্রত বিশ্বাস ও আতিকুল ইসলাম।

বুধবার দ্বিতীয় ও তৃতীয় দফা রিমান্ড মঞ্জুর করার ব্যাখ্যা হাইকোর্টের কাছে জমা দিয়েছেন রিমান্ড মঞ্জুরকারী দেবব্রত বিশ্বাস ও আতিকুল ইসলাম। হাইকোর্ট বিভাগের রেজিস্ট্রার কার্যালয়ে এ ব্যাখ্যা দাখিল করা হয়েছে।

এর আগে উচ্চ আদালতের নির্দেশনা না মেনে মাদক মামলায় চিত্রনায়িকা পরীমণিকে বারবার রিমান্ডে নেয়ার বিষয়ে বিচারকের ব্যাখ্যা দিতে নথি ও তদন্ত কর্মকর্তাকে তলব করেন হাইকোর্ট।

আজ বুধবার হাইকোর্টের বিচারপতি মোস্তফা জামান ইসলাম ও বিচারপতি কে এম জাহিদ সারওয়ার কাজলের ভার্চুয়াল বেঞ্চে এটি শুনানি হওয়ার কথা রয়েছে। শুনানির জন্য মামলাটি হাইকোর্টের সংশ্লিষ্ট বেঞ্চের কার্য তালিকায় (কজিলেস্ট) রয়েছে। এ তথ্য জানা গেছে সুপ্রিম কোর্টের সংশ্লিষ্ট সূত্রে।

এর আগে গত ২৯ আগস্ট হাইকোর্টে স্ব-প্রণোদিত আদেশের আর্জি জানানো হয়। মানবাধিকার সংগঠন আইন ও শালিস কেন্দ্রের (আসক) পক্ষে সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী সৈয়দা নাসরিন এ আবেদন করেন। এরপর ২ সেপ্টেম্বর একই বেঞ্চ মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনের মামলায় পরীমণিকে বারবার রিমান্ডে নেয়ার বিষয়ে বিচারিক আদালতের ব্যাখ্যা ও নথি (কেসডকেট সিডিসহ) তলব করেন হাইকোর্ট। একই সঙ্গে দুই তদন্ত কর্মকর্তাকে ১৫ সেপ্টেম্বর সশরীরে উপস্থিত হতে বলা হয়। এছাড়া তিন দফায় রিমান্ডের আদেশ দেওয়ায় সংশ্লিষ্ট বিচারকের কাছে ব্যাখ্যাও চান আদালত।

প্রসঙ্গত, এর আগে গত ৫ আগস্ট পরীমণি ও দীপুর চার দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছিলেন ঢাকা মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট মামুনুর রশিদ। পরে দ্বিতীয় দফায় গত ১০ আগস্ট পরীমণি ও আশরাফুল ইসলাম দীপুর দুই দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন ঢাকা মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট দেবব্রত বিশ্বাস। এরপর তৃতীয় দফায় গত ১৯ আগস্ট পরীমণির একদিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন ঢাকা মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট আতিকুল ইসলাম।

গত ৩১ আগস্ট হাইকোর্টের আদেশের আলোকে পরীমণিকে জামিন দেন বিচারিক আদালত।